‘বিজনেস নেটওয়ার্কিং ওয়ার্কশপ’ অনুষ্ঠিত

0
603

প্রবাস রিপোর্ট:একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করে সফল হতে হলে করনীয় বিষয়ে কমিউনিটিকে সচেতন করার লক্ষ্যে ‘বিজনেস নেটওয়ার্কিং গ্রুপ’ কর্তৃক আয়োজিত ‘বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ওয়ার্কশপ’ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। ১৯ জুলাই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উডসাইডস্থ কুইন্স প্যালেসে আয়োজিত এই ওয়ার্কশপে কমিউনিটির বিভিন্ন স্তরের ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা, মিডিয়ার সম্পাদক-সাংবাদিকরা ছাড়াও আগ্রহী ব্যবসায়ীরা উপস্থিত হয়েছিলেন। কমিউনিটি এক্টিভিস্ট মোহাম্মদ এন. মজুমদার ছিলেন অনুষ্ঠানের মডারেটর। প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন, কমিউনিটির অতি পরিচিত সিপিএ ইয়াকুব এ.খান। তিনি ‘বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ওয়ার্কশপ’-এর লক্ষ্য এবং এর গুরুত্ব¡ তুলে ধরেন।


একটি ব্যবসা শুরুর আগে করণীয় দিকসমূহ নিয়েও তিনি বিস্তারিত আলোচনা করেন। মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন আলোচক এইচএবি ব্যাংক-এর অ্যাসিস্টেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসমাইল আহমেদ,নিউইয়র্কের হার্টল্যান্ড পেমেন্ট সিস্টেমস-এর রিলেশনশীপ ম্যানেজার রহমান আরশাদ ও ম্যাস মিউচ্যুয়াল মেট্রো নিউইয়র্ক-এর ফাইন্যান্সিয়াল প্রফেশনাল মোহাম্মদ গাফফার।
সেমিনারে ব্যবসার ধরন, কেন-কেমন ব্যবসা করবেন, পরিকল্পনা, ব্যবসায় পুঁজি, ব্যাংক লোন, এ্যামপ্লয়ী, কাস্টমার সার্ভিস, লোকেশন, আয়-ব্যয় তথা হিসাব-নিকাশ, ব্যবস্থাপনা প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছাড়াও ব্যবসার খুটিনাটি বিষয়গুলোও বক্তারা তুলে ধরেন। পরে উপস্থিত ব্যবসায়ীরা নিজেদের ব্যবসার অভিজ্ঞতা কথাও তুলে ধরেন এবং ছাড়াও প্রশ্ন-উত্তর পর্বে অংশ নেন। অর্ধ শতাধিক ব্যবসায়ী সেমিনারে যোগ দেন।
সেমিনারে ইয়াকুব এ খান সিপিএ প্রজেক্টরের মাধ্যমে ব্যবসার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, ভালো ব্যবসা আর ব্যবসায় সফল হতে হলে দরকার ব্রড মাইন, অভিজ্ঞতা, সুষ্ঠু পরিকল্পনা, বিকল্প অপশন, ভালো লোকেশন, ভালো প্রেজেন্টেশন, ভালো ব্যবস্থাপনা, ছোট ছোট বিষয়কে গুরুত্ব দেয়া, কাস্টমার সার্ভিস, হিসাব-নিকাশে স্বচ্ছতা, টিম ওয়ার্ক, ক্রিয়েটিভ চিন্তা, মালিক-শ্রমিক-এর মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রাখা, ক্রেতাদের সাথে সুসম্পর্ক জোরদার ও সর্বোচ্চ সেবা প্রদান, নিজেকে আপগ্রেড রাখা ও দূরদৃষ্টি সম্পন্ন হওয়া আর আধুনিক সিস্টেমে ব্যবসা পরিচালনার পাশাপশি ব্যবসায় সময় দেয়া। এছাড়াও যেকোন ব্যবসা শুরুর আগে সেই ব্যবসা সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা থাকাও জরুরী।
অনুষ্ঠানের মডারেটর মোহাম্মদ এন মজুমদার বলেন, কোন প্রতিষ্ঠানে ১২৫ জনের নীচে এমপ্লয়ী থাকলে সেটি স্মল বা ক্ষুদ্র ব্যবসা হিসেবে গন্য। সেই হিসেবে অধিকাংশ প্রবাসী বাংলাদেশী স্মল ব্যবসার সাথে জড়িত। তিনি বলেন, স্মল ব্যবসায়ীদের নিউইয়র্ক সিটি প্রশাসন নানা সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকে। এসব জেনে সংশ্লিস্টদের সেবা নেয়া উচিৎ।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত অনেকেই মুক্ত আলোচনায় যোগ করে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন রাখেন। বক্তাগণ তাদের সেসব বিষয় বুঝিয়ে বলেন। এ ধরণের একটি উদ্যোগের জন্য ‘বিজনেস নেটওয়ার্কিং গ্রুপ’কে ধন্যবাদ জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here