কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণ হারাতে পারে রিপাবলিকানরা

0
188

মধ্যবর্তী নির্বাচন থেকে হাউস স্পীকার রায়ান সরে দাড়ালেন
প্রবাস রিপোর্ট: এ বছরের নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যবর্তী নির্বাচন। কংগ্রেসের দুই কক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেট উভয়টিতেই নিয়ন্ত্রণ রয়েছে রিপাবলিকানদের। কিন্তু মধ্যবর্তী নির্বাচনে তারা এই নিয়ন্ত্রণ হারাতে পারেন। এমন পূর্বাভাষ দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, এখন যদি নির্বাচন হয় তাহলে উভয়কক্ষেই পরাজিত হবেন রিপাবলিকানরা। এমন পূর্বাভাস দিয়েছেন পোলস্টার বলে খ্যাত ফ্রাঙ্ক লুনটজ।
এদিকে একের পর কংগ্রেসম্যান ও সিনেটর ঘোষনা দিচ্ছেন তারা নির্বাচন করবেন না। সর্বশেষ হাউস স্পীকার রিপাবলিকান পল রায়ান চলতি বছরের মধ্যবর্তী নির্বাচন থেকে সরে দাড়িয়েছেন। পল রায়ান এক ঘোষণায় জানান তিনি আর নির্বাচন করবেন না। প্রভাবশালী এই রিপাবলিকানের সওে দাড়ানোর ঘোষনা রিপাবলিকানদেরন জন্য বড় আঘাত বলে মনে করা হচ্ছে। এ নিয়ে বর্তমান ৫৫ জন কংগ্রেসম্যান মধ্যবর্তী নির্বাচন থেকে সওে দাড়ানোর ঘোষণা দিলেন। এর মধ্যে ৩৮ জন রিপাবলিকান ও ১৭ জন ডেমোক্রাট।
পোলস্টার বলে খ্যাত ফ্রাঙ্ক লুনটজ বলেছেন, উভয় কক্ষে রিপাবলিকানরা গভীর এক সঙ্কটে রয়েছে। তিনি এ নিয়ে কথা বলেছেন ফক্স নিউজের সঙ্গে। যুক্তরাষ্ট্রের জনমত গুরু হিসেবে পরিচিত ফ্রাঙ্ক লুনটজ রিপাবলিকানদের এই ভাগ্য ঝুলে যাওয়ার জন্য দায়ী করেছেন আংশিক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসনের অধীনে অর্থনীতি সমৃদ্ধ হয়েছে বলে স্বীকার করেন তিনি। কিন্তু তার মতে যথাযথ স্বীকৃতি আদায় করতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রেসিডেন্ট। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যেকোনো ইস্যুতে বেছে নিয়েছেন টুইটার। তিনি অর্থনীতি সংক্রান্ত ইতিবাচক বিষয়গুলো থেকে টুইট করে দৃষ্টি সরিয়ে দেন অন্য দিকে।
হাউসের মধ্যবর্তী নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা হবে ৪৩৫ আসনে। ওই পরিষদে বর্তমানে রিপাবলিকানদের দখলে আছে ২৩৮টি আসন। বিরোধী ডেমোক্রেটদের আছে ১৯২ আসন। তবে ডেমোক্রেটরা আরো অনেক বেশি আসন নির্বাচনে পাবে এমনটাই বলা হচ্ছে। তারা যদি আর ২৩টি আসন পায় তাহলেই প্রতিনিধি পরিষদ তাদের নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। সেক্ষেত্রে সিনেট হলো আরো কঠিন জায়গা। সেখানে তাদের আছে এখন ২৬টি আসন। আর অতিরিক্ত দুটি আসন পেলেই তারা এর নিয়ন্ত্রণ হাতে পাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here