এপ্রিলে মহাকাশে যাচ্ছে বাংলাদেশের ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ১’ 

0
613

 

 প্রবাস রিপোর্ট: বাংলাদেশের ক্রয়কৃত প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহবঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটএপ্রিলে মহাকাশে যাচ্ছে। বিশ্বের অন্যতম খ্যাতনামা স্যাটেলাইট নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ফ্রান্সের থেলেস এলেনিয়া স্পেস সে দেশের কান টুলজ ফ্যাসিলিটি এই স্যাটেলাইটের প্রধান অংশ নির্মাণ করেছে। এটি তৈরির জন্য ২০১৫ সালের ১১ নভেম্বর বিটিআরসির সঙ্গে টার্ন কি পদ্ধতি কোম্পানিটির চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি এই স্যাটেলাইটটি ফ্লোরিডা থেকে আকাশে পাড়ি দেবে।

 

নিউইয়র্কে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান . শাহজাহান মাহমুদ জানিয়েছেন, এপ্রিলের প্রথম বা দ্বিতীয় সপ্তাহে ফ্লোরিডারস্পেস এক্স থেকে এটি উৎক্ষেপণ করা হবে। সংবাদ সম্মেলনটি সঞ্চালন করেছেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান।

এর মাধ্যমে নিজস্ব স্যাটেলাইটের অধিকারী বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসাবে বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশ ঘটবে। এই স্যাটেলাইট স্থাপনের মাধ্যমে বাংলাদেশের যেমন নির্ভরতা কমবে অন্য দেশের ওপর, তেমনি দেশের অভ্যন্তরীণ টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আসবে।

শনিবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কনস্যুলেটে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রে সফররত বিটিআরসি চেয়ারম্যান . শাহজাহান মাহমুদ বলেন, স্পেস এক্স এর উৎক্ষেপণযান বা রকেট ফ্যালকন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটকে মহাকাশে ১১৯ দশমিক পূর্ব দ্রাঘিমাংশে অবস্থিত অরবিট প্লটে স্থাপন করবে। এটি খুব শিগগির ফ্রান্স থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় কার্গো বিমানে উৎক্ষেপণ স্থান ফ্লোরিডার ক্যাপ ক্যানাভেরালে নিয়ে যাওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে . শাহজাহান মাহমুদ জানান, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নির্মান উৎক্ষেপনে মোট ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে হাজার ৯০২ কোটি টাকা। সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে এক হাজার ৫৪৪ কোটি টাকা এবং অবশিষ্ট এক হাজার ৩৫৮ কোটি টাকা বিডার্স ফাইনান্সিংএর মাধ্যমে ব্যয় সংকুলান হয়েছে।

তিনি জানান, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের ৪০টি ট্রান্সপন্ডার থাকবে, যার ২০টি বাংলাদেশ ব্যবহার করবে। বাকি ২০টি বিদেশিদেও কাছে ভাড়া দিতে পারবে। উৎক্ষেপণের পর পরবর্তী বছর পর্যন্ত এর তদারকি করবে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান। এটি আগামী ১৮ বছর পর্যন্ত মহাকাশে থেকে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি এবং কাজ করতে পারবে বলে জানানো হয়।

এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপনের পরে বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলি এখনকার প্রচলিত ক্যাবল ভিত্তিক প্রচারণার পরিবর্তে ছোট ছোট ডিস অ্যানটেনার ডাইরেক্ট টিভি সিগনাল পাবে। সেই সিগনাল ফ্রিকোয়েন্সি বরাদ্দের দায়িত্ব থাকবে দুটি প্রতিষ্ঠান। বেক্সিমকো গ্রæ এবং বায়ার মিডিয়া। এই দুটি প্রতিষ্ঠান পুরো টিভি চ্যানেল ফ্রিকোয়েন্সি বরাদ্দ এবং সিগন্যাল বিকিকিনির পুরো ব্যবসায়িক দিকটি উপভোগ করবে। এদের ছাড়া অন্য কোনো কোম্পানি এখানে ডিটিএস প্রযুক্তির ব্যবসায় নামতে পারবে না বলে জানানো হয়েছে।

কোন বিবেচনায় দুটি কোম্পানিকে ফ্রিকোয়েন্সি বরাদ্দ এবং সিগন্যাল বিকিকিনির পুরো ব্যবসায়িক দিকটি দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান বিটিআরসির চেয়ারম্যান। তিনি জানান, ‘এটি তথ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত। এটা স্পর্শকাতর একটি বিষয়, আমার কাছে সঠিক উত্তর নেই।  এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বাংলাদেশে প্রায় ৩৭টি টিভি টেলিভিশন চ্যানেল রয়েছে। তারা আমাদের স্যাটেলাইট ব্যবহার করতে বাধ্য নয়, তবে অন্যদের থেকে আমাদের স্যাটেলাইট ভাড়া খরচ কম রাখা হবে বলে আশা করছি সবাই ব্যবহার করবেন।

.শাহজাহান মাহমুদ জানান, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট মি থেকে নিয়ন্ত্রণ পরিচালনার জন্য গাজীপুর জেলার জয়দেবপুরে প্রাথমিক এবং রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়া ভূউপগ্রহ কেন্দ্র দ্বিতীয় গ্রাউন্ড স্টেশনের নির্মাণ কাজও চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। প্রবাসী ভালো কর্মী পাওয়া গেলে থাকলে আমাদের প্রকল্পে কাজ করার সুযোগ দেয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জিয়াউদ্দীন আহমেদ, জাতিসংঘে নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, কনসাল জেনারেল শামীম আহসান এনডিসি, বিটিআরসি রেগুলেটরি কমিশনের সচিব মোহাম্মদ সারোয়ার আলম আর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রকল্পের কনস্যালট্যান্সি প্রতিষ্ঠান, স্পেস পার্টনারশিপ ইন্টারন্যাশনালের (এসপিআই) ম্যানেজিং পার্টনার শফিক চৌধুরী প্রমুখ।

কনস্যুলেটে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নিউইয়র্কের প্রায় সকল মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত হয়েছিলেন। সাংবাদিক সম্মেলন হলে সংবাদকর্মীরা উপস্থিত থাকবেনএটাই স্বাভাবিক। তবে এই পেশায় জড়িত নেই এমন বেশ কয়েকজনকে বিভিন্ন আসনে বসে থাকতে দেখা যায়। এতে বেশ কয়েকজন সিনিয়র সাংবাদিককে আসন খুজে পেতে এবং বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে দেখা যায়।

 

প্রবাসীদের সাথে মতবিনিময়

কনস্যুলেটে সাংবাদিক সম্মেলনের আগে .শাহজাহান মাহমুদ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দসহ কমিউনিটি নেতাদের সাথে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন বিষয়ে মতবিনিময় করেন। কিভাবে ফ্লোরিডায় আয়োজিত অনুষ্ঠানটি সফল করা যায় এবং এই আয়োজনটিকে সেলিব্রেট করা যায় তা নিয়ে তিনি দলীয় নেতাকর্মী প্রবাসীদের পরামর্শ গ্রহণ করেন।

 

  সময় বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি .সিদ্দিকুর রহমান,সহ সভাপতি সামসুদ্দীন আজাদ,ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ,সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ,আব্দুর রহিম বাদশা প্রমুখ সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here