সাফল্যের স্বীকৃতির আরেক ধাপ: সিটি কাউন্সিলের প্রোক্লেমেশন পেল খান ফাউন্ডেশন

0
287

 

প্রবাস রিপোর্ট: নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল স্পিকার মেলিসা মার্ক ভিভোরিটা এবং কাউন্সিলম্যান আই. ড্যানিক মিলার সিটিতে বসবাসকারী ইমিগ্রান্টসহ স্বল্পআয়ের পরিবারের সন্তানদের জন্য উচ্চ শিক্ষার সুযোগ করে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষা বিস্তারে বিশেষ সাফল্যের জন্য বাংলাদেশী কমিউনিটির অন্যতম প্রধান নন-প্রফিট সে”চ্ছাসেবকমুলক প্রতিষ্ঠান খান ফাউন্ডেশনকে বিশেষ প্রোক্লেমেশন দিয়েছে। ম্যানহাটানের সিটি হলের কাউন্সিল চেম্বারে ঈদুল ফিতর উদযাপনে আয়োজিত এক উৎসব অনুষ্ঠানে এই বিশেষ প্রোক্লেমেশন হস্তান্তর করা হয়।

সিটি কাউন্সিল স্বীকার মেলিসা ভিভোরিটা এবং কাউন্সিলম্যান আই ড্যানিক মিলার যৌথভাবে সিটির মুসলিমদের সম্মানে ঈদুল ফিতর সেলিব্রেশনের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সিটিতে শিক্ষা বিস্তারে বিশেষ অবদান রাখার স্বীকৃতি হিসাবে খান ফাউন্ডেশনকে এই প্লোক্লেমেশন হস্তান্তর করা হয়। উল্লেখ্য সিটিতে টিউটোরিয়াল সেন্টারের মাধ্যমে স্কুল ছাত্র-ছাত্রীদের বিশেষ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষার পথ ও মেধা বিকাশের মাধ্যমে সিটির স্পেশালাইজড স্কুলে ভর্তির সুযোগ করে দেওয়ার জন্য পথিকৃত টিউটেরিয়াল খানস টিউটোরিয়ালের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম মনসুর খানের স্মরণে প্রতিষ্ঠিত খান ফাউন্ডেশনে কাজ করে যাচ্ছে। সিটির নিম্ন আয়ের ইমিগ্র্যান্ট পরিবারের মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা প্রদানসহ তাদের মেধার বিকাশে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণের সুযোগ করে দিয়ে থাকে। এছাড়াও শিক্ষা বিস্তারে খান ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন প্রোগ্রাম রয়েছে। খান ফাউন্ডেশনের সিটির এডুকেশন ডিপার্টমেন্টসহ অন্যান্যদের সাথে এই ধরণের সেবামূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই খান ফাউন্ডেশনের সহায়তায় নি¤œ আয়ের ইমিগ্র্যান্ট পরিবারের প্রায় ৭০ জন ছাত্র-ছাত্রী প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে হাজার হাজার ডলার ফাইন্যান্সিয়াল এইডসহ যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কলেজসমূহে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছে।

এদিকে খানস টিউটোরিয়াল তাদের সাফল্যে উজ্জিবিত হয়ে সিটির জ্যামাইকায় এই সামার ও ফলস-এ কলেজ অ্যাক্সেস প্রোগ্রাম শুরু করার উদ্যোগ গ্রহন করেছে।

অনুষ্ঠানে খান ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. ইভান খান ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে প্রক্লেমেশন গ্রহন করেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন, তার টিমের সদস্য  খান ফাউন্ডেশনের বোর্ড অফিসার ড: তাসনিম হক, প্রোগ্রাম ডাইরেক্টর মেলিসা জনসন, প্রোগ্রাম ম্যানেজার তানজিরুল ইসলাম, টেকনিক্যাল কো অর্ডিনেটর তাহমিন চৌধুরী। সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন, খান টিউটোরিয়ালের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ হোসেইন এবং খান টিউটোরিয়ালের ডাইরেক্টর আউটরিচ রীভু ইসলাম।

এ প্রসঙ্গে ড. ইভান খান বলেন, অলাভজনক প্রতিষ্ঠান খান ফাউন্ডেশনের এই প্রোগ্রাম চালিয়ে যাওয়া একটি বড় চ্যালেঞ্জ হলেও খান ফাউন্ডেশন আমেরিকান স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাওয়ায় অঙ্গীকারবদ্ধ। সিটির নি¤œ আয়ের পরিবারের ও ইমিগ্র্যান্ট পরিবারের ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য খান ফাউন্ডেশন আগামীদিনগুলোতেও নিরলসভাবে কাজ করে যেতে ইচ্ছুক।

ইভান খান এই সম্মানজনক প্লোক্লেমেশন গ্রহন করে খান ফাউন্ডেশনসহ এই প্রতিষ্ঠানের স্টাফ, স্বেচ্ছাসেবক ও শুভানুধ্যায়ীদের পক্ষ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, সিটি কাউন্সিল খান ফাউন্ডেশনকে যেভাবে তাদের কর্মের জন্য সম্মানিত করেছে তাতে তিনি অভিভুত এবং ভবিষ্যতে আরো ব্যপকভাবে সিটির ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষার উন্নয়ন ও শিক্ষা বিস্তারে কাজ করার জন্য অনুপ্রানিত।

তিনি বলেন, সিটিতে বসবাসকারী নি¤œ আয়ের  ও আনডকুমেন্টেড ইমিগ্র্যান্ট পরিবারের সদস্যরা উচ্চ শিক্ষা অর্জনের ক্ষেত্রে আর্থিক সমস্যা থেকে বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় নিপতিত হয়। ফলে মেধা থাকা সত্ত্বেও তাদের অনেকেই উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করার সুযোগ পায় না। এইসব ছাত্রছাত্রীদের উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়ার লক্ষ্যে কলেজে ভর্তিসহ সবরকম সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে খান ফাউন্ডেশন।

অনুষ্ঠানে খান ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম ডাইরেক্টর মেলিসা জনসন বলেন, আমরা কাজ করছি মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের আগামী দিন গড়ে দেওয়ার জন্য। এভাবেই আমরা মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের  আগামী দিনের জীবনে পথ উম্মুক্ত করে  দিতে চাই।

৫০১( সি ) (৩) এর অধীনে রেজিস্ট্রিকৃত খান ফাউন্ডেশন একটি সম্পূর্ণ অলাভজনক সংস্থা। সিটির নি¤œ আয়ের ও ইমিগ্র্যান্টদের পরিবারের হাইস্কুল পড়–য়া মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে ও  তাদের কলেজ ও প্রফেশনাল শিক্ষায় সবধরনের সহায়তা দিচ্ছে খান ফাউন্ডেশন। সেই সাথে ইয়ং লিডারশিপ গড়ে তোলার কাজও করে যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here